বরিশাল

বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দীন জাহাঙ্গীর

প্রকাশ : 15 জানুয়ারি 2012, রবিবার, সময় : 07:32, পঠিত 3928 বার

শামস্ বিশ্বাস
৮ মার্চ ১৯৪৯ সালে বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ থানার আগরপুর ইউনিয়নের রহিমগঞ্জ গ্রামে জগ্রহণ করেন। তার পিতা মোতালেব হাওলাদার, মা সাফিয়া খাতুন। ১৯৬৮ সালে জুন মাসে ইঞ্জিনিয়ার্স কোরে কমিশন লাভ করেন। মুক্তিযুদ্ধ শুরুর সময় তিনি পশ্চিম পাকিস্তানে ১৭৩ নম্বর ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়নে কর্মরত ছিলেন । মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে তিন সহকর্মীর সঙ্গে তিনি গোপনে কর্মস্থল ত্যাগ করেন এবং দুর্গম পার্বত্য এলাকা অতিক্রম করে পশ্চিমবঙ্গের মালদহ জেলার মেহেদিপুরে মুক্তিবাহিনী ক্যাম্পে পৌঁছান। মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল ওসমানী রণক্ষেত্র থেকে কলকাতায় এসেছিলেন এ চার বীরকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য। ক্যাপ্টেন জাহাঙ্গীর দায়িত্ব গ্রহণের পর পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে কয়েকটি সফল অভিযানে পরিচালনার মাধ্যমে অসাধারণ রণনৈপুণ্য ও সাহসিকতার পরিচয় দেন। ডিসেম্বর মাসে চাঁপাইনবাবগঞ্জ দখলের জন্য তাকে একটি মুক্তিযোদ্ধা দলের নেতৃত্ব দেয়া হয়। তিনি ১০ ডিসেম্বর জনা পঞ্চাশেক মুক্তিযোদ্ধাসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের পশ্চিমে বারঘরিয়া নামক স্থানে অবস্থান গ্রহণ করেন। ১৪ ডিসেম্বর প্রতুষ্যে তারা রেহাইচরের মধ্য দিয়ে নৌকাযোগে মহানন্দা নদী পার হন এবং অতর্কিত আক্রমণ চালিয়ে শত্রর কয়েকটি ট্রেঞ্চ দখল করে নেন। দুপক্ষে তুমুল সংঘর্ষের একপর্যায়ে শত্রপক্ষের একটি গুলি মহিউদ্দীনের কপালে আঘাত করে এবং কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনি মারা যান। এতে হতোদ্যম না হয়ে মুক্তিযোদ্ধারা শত্রর অবস্থানের ওপর প্রচণ্ড আক্রমণ চালায়। পাকসেনারা শেষ পর্যন্ত পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। পরের দিন ১৫ ডিসেম্বর হাজারও মুক্তিযোদ্ধার অশ্রশিক্ত ভালোবাসায় বীরশ্রেষ্ঠ মহিউদ্দীন জাহাঙ্গীরকে তার অন্তীম ইচ্ছা অনুযায়ী সমাহিত করা হয় ঐতিহাসিক ছোট সোনামসজিদ চত্বরে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের রেহাইচরে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীরের শাহাদত স্থলে নির্মিত হয়েছে একটি স্মৃতিস্তম্ভ।
 


বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার রহিমগঞ্জ গ্রামের নাম আগে ছিল তার দাদার নাম অনুসারে। এখন তার নামানুসারে জাহাঙ্গীরনগর। গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে সন্ধ্যা নদী। নদীর ওপর সড়ক ও জনপথ বিভাগ জাহাঙ্গীর সেতু নির্মাণ করেছে। সেতু পেরিয়ে সবুজের মাঝখান দিয়ে সড়ক গেছে বাটাজোর বাজারে। বাটাজোর থেকে অল্প দূরেই জাহাঙ্গীরনগর। সেখানে তার নামে স্কুল ও জাদুঘর রয়েছে।


সর্বশেষ


সর্বাধিক পঠিত

Music | Ringtone | Book | Slider | Newspaper | Dictionary | Typing | Free Font | Converter | BTCL | Live Tv | Flash Clock Copyright@2010-2014 turiseguide24.com. all right reserved.
Developed by i2soft Technology