মালয়েশিয়া

বিশ্বখ্যাত শপিংমল

প্রকাশ : 14 অক্টোবর 2011, শুক্রবার, সময় : 09:35, পঠিত 3397 বার

সেলিম কামাল
বেরজায়া টাইমস স্কয়ার কুয়ালালামপুরকে বলা হয় মালয়েশিয়ার সর্ববৃহৎ শপিংমল। এর আয়তন ৭ লাখ বর্গমিটার। এর প্রায় অর্ধেকই হচ্ছে মল এলাকা। এখানে ১ হাজার খুচরা বিক্রির দোকান, ১ হাজার দুশ লাক্সারি সার্ভিস স্যুট এবং পঁয়ষট্টিটি ফুড আউটলেট রয়েছে। আরেকটি আকর্ষণ হচ্ছে, এশিয়ার সবচেয়ে বড় ইনডোর থিম পার্ক। এছাড়া রয়েছে মালয়েশিয়ার প্রথম আইমেক্স টুডি ও থ্রিডি থিয়েটার।
আকর্ষণীয় মল ফিলিপাইনের এসএম মেগামলও। মেট্রো ম্যানিলায় তৈরি এ মলের বিস্তৃতি ৩ লাখ ৩১ হাজার ৬৭৯ বর্গমিটার। এতে রয়েছে দেশের প্রথম আইস স্কেটিং রিঙ্ক। এর সবচেয়ে উপরের তলায় রয়েছে ৩টি বড় মাপের হলরুম যেখানে বড় ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা সম্ভব। এসএম মেগামলের মালিক মালয়েশিয়ার ধনাঢ্য ব্যবসায়ী হেনরি সাই।
প্রায় একই মাপের আরেকটি শপিংমল আছে ফিলিপাইনে যার মালিক ওই মেগামলের হেনরি সাই। নাম এসএম সিটি নর্থ ইডিএসএ। এটি নির্মাণ করা হয়েছিল ১৯৮৩ সালে। এরপর অনেক পরিবর্তন-পরিবর্ধন করে আজকের অবস্থায়। এখানে বিশেষত, ফুড কোর্ট, বিশাল বাগান, বিনোদন কেন্দ্র এবং ১২টি থিয়েটার রয়েছে।
তুরস্কের সিভাহির শপিং সেন্টার উদ্বোধন হয় ২০০৫ সালের ১৫ অক্টোবর। ইস্তাম্বুলের সুনাম বিশ্বজুড়ে ছড়িয়েছে ৩ লাখ ৪৮ হাজার বর্গমিটারের এ মল। কারণ এটিই ইউরোপের সবচেয়ে বড় শপিংমল। বিশ্বে এর অবস্থান সপ্তম। এটি মূলত একটি বাণিজ্যিক কেন্দ্র। মজার ব্যাপার হচ্ছে, এ শপিংমলের ডিজাইন করা হয়েছিল ১৯৮৭ সালে এবং এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হয় দশ বছর পর ১৯৯৭ সালে।
কানাডার এডমন্টোতে রয়েছে ৩ লাখ ৫০ হাজার বর্গমিটারের ওয়েস্ট এডমন্ট মল। এতে আছে ৮শরও বেশি দোকান এবং যার পার্কিংয়ে ঠাঁই পাবে ২০ হাজার গাড়ি। শুধু তাই নয়, ২৩ হাজারেরও বেশি লোক এ মলের বিভিন্ন দোকানে চাকরি করছেন। এ মলে থাকা হাস্য-কৌতুকের পার্কটির নাম দেয়া হয়েছিল ফ্যান্টাসিল্যান্ড। কিন্তু ওয়াল্ট ডিজনি কোম্পানি ওই নামের ব্যাপারে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা ঠুকে দেয়ায় তারা ওই নামটি প্রত্যাহার করে নেয়।
তাইওয়ানের কোয়াসিয়াংয়ে গড়ে ওঠা ড্রিম মলের আয়তন ৪ লাখ ১ বর্গমিটার। এটির উদ্বোধন হয় ২০০৭ সালের ১২ মে। এতে রয়েছে রেস্টুরেন্ট, মুভি থিয়েটার, জিম এবং অন্যান্য বিনোদন সুবিধা।
মোয়া নামে পরিচিত মলটির পুরো নাম মল অব এশিয়া। ফিলিপাইনের এ শপিংমলের পরিসর ৪ লাখ ৭ হাজার ১০১ বর্গমিটার। এটির উদ্বোধন হয় ২০০৬ সালের ২১ মে। এর ভেতর রয়েছে ফিলিপাইনের সর্বপ্রথম অলিম্পিক সাইজ আইস স্কেটিং রিঙ্ক (৬১-৩০ মিটার)।
ব্যাংককের সবচেয়ে বড় শপিংমলটির নাম সেন্ট্রাল ওয়ার্ল্ড। এর পরিসর ৮ লাখ বর্গমিটার। ৮ তলা এ মল দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সবচেয়ে বড় হিসেবে চমক সৃষ্টি করে সেই ১৯৯০ সালে। তাই অনেকেই এর নাম দিয়েছেন ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার।
চীনের বেইজিং ফোর্থ রিঙ রোডে রয়েছে সে দেশের সেরা শপিংমল গোল্ডেন রিসোর্সেস শপিংমল। যার আয়তন ৬ লাখ ৮০ হাজার বর্গমিটার। ৬ তলা এ শপিংমল নির্মাণের ২০ মাস পর উদ্বোধন হয় ২০০৪ সালের ২০ অক্টোবর।
৬ লাখ ৫০ হাজার বর্গমিটার আয়তনের সাউথ চায়না শপিংমলে রয়েছে ১৫০ হাজারের বেশি দোকান। প্রতিটি দোকানই বিশাল আকারের। এতে ৭টি জোন রয়েছে আলাদা নামে অ্যামস্টারড্যাম, প্যারিস, রোম, ভেনিস, ইজিপ্ট, দ্য ক্যারিবিয়ান ও ক্যালিফোর্নিয়া। ২০০৫ সালে এর উদ্বোধন হয়ে গেলেও খুব ভালোভাবে এখনও জমে ওঠেনি মলটি। কারণ সুদর্শন এ মলটির সঙ্গে চীনের অন্যান্য স্থানের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত নয়।


সর্বশেষ


সর্বাধিক পঠিত

Music | Ringtone | Book | Slider | Newspaper | Dictionary | Typing | Free Font | Converter | BTCL | Live Tv | Flash Clock Copyright@2010-2014 turiseguide24.com. all right reserved.
Developed by i2soft Technology