শেরপুর

ঘুরে আসুন শেরপুরের ‘চুকু লুপি’ চিলড্রেন‘স পার্ক

প্রকাশ : 10 অক্টোবর 2014, শুক্রবার, সময় : 13:43, পঠিত 3479 বার

শাহরিয়ার মিল্টন :
ইট-পাথরে ঘেরা শহুরে জীবনে পরিবার-পরিজন নিয়ে একটু অবকাশ যাপন বা আনন্দ ভ্রমনের সুযোগ হয় না আমাদের সমাজের অনেকেরই। তাই অনেকেই ঈদের ছুটিতে এ সুযোগ কাজে লাগান। আমাদের সমাজে পেটের তাগিদে অনেকেরই  বেড়ানোর যেমন সুযোগ হয় না তেমনি বাড়ির ছোট্ট সোনামনির সাথে একটু ঘুরে বেড়ানোরও সুযোগ নেই অনেকের। তাই বছরের দুটি ঈদে এ সুযোগ কাজে লাগাতে ঘুরে আসতে পারেন সীমান্তবর্তী ভারতের মেঘালয় রাজ্য ঘেষা শেরপুর জেলার গারো পাহাড় এলাকার গজনি অবকাশ কেন্দ্রের ‘চুকু লুপি চিলড্রেন’স পার্ক থেকে । যদিও দেশের রাজধানীসহ বিভিন্ন বড় বড় শহরের আনাচে কোনাচে এবং দেশের বিভিন্ন নামী-দামি শিশু পার্কের অভাব নেই। কিন্তু বন-পাহাড় ঘেরা প্রকৃতির অপরূপ সৈন্দর্য উপভোগ করার সুযোগ নেই ওইসব শিশু পার্ক গুলোতে। বন-বৃক্ষের ছায়া ঘেরা আর নাম না জানা অসংখ্য পাখ-পাাখালির কলতান, বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী  গারো, কোচ, হাজং, ডালু, বানাই সম্প্রদায়ের কৃষ্টি কালচার বেষ্টিত এ গারো পাহাড়ের গায়ে গড়ে ওঠা চুকু লুপি শিশু পার্কটি প্রত্যন্ত এলাকায় হলেও এটি নির্মান করা হয়েছে আধুনিকতার ছোয়ায়। 

চলতি বছরের ৭ এপ্রিল শেরপুরের শিল্প প্রতিষ্ঠান ‘ভি-সাইন’ গ্রুপের  এ পার্ক উদ্বোধন করা হয়। অবকাশ পিকিনিক কেন্দ্রের প্রকৃতির অপরূপ দৃশ্যের পাশাপাশি শিশুদের জন্য নির্মিত এ চিলড্রেন‘স পার্কটি দেশের একমাত্র বিদ্যুৎ ও চৌ¤ু^ক শক্তির মাধ্যমে ফ্লাইওভার রেল রাইডস সবচেয়ে আর্কষনীয়। এছাড়া এ পার্কে রয়েছে   বৈদ্যুতিক নাগর দোলা, সুপার চেয়ার, মেরি গো রাউন্ড, দোলনাসহ বিভিন্ন রাইডস। ভবিষ্যতে শিশুদের বিনোদনের জন্য আরো অত্যাধুনিক বিভিন্ন রাইডস বসানো হবে বলে ভি-সাইন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। এ পার্কের প্রবেশ মূল্য ১০ টাকা এবং প্রতিটি রাইডের জন্য আলাদা ভাবে ১০ টাকা থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত টিকিটের মূল্য ধার্য করা হয়েছে।
যেভাবে যাবেন ঃ ঢাকা মহাখালি বাসস্ট্যান্ড থেকে শেরপুর জেলা সদরে বেশ কিছু ভাল বাস সার্ভিস রয়েছে। জনপ্রতি ভাড়া  ৩০০ টাকা। এরপর শেরপুর জেলা শহরের নবীনগন বাস স্ট্যান্ড থেকে ঝিনাইগাতী উপজেলা সদরে গিয়ে সিএনজি অটোরিক্সায় জন প্রতি ২৫ টাকায় মাত্র ৮ কি.মি. পথ পেরিয়ে  পৌছে যাবেন অবকাশ পর্যটন কেন্দ্রে। এ পর্যটন কেন্দ্রে প্রবেশ করে সোজা চলে যাবেন। হাতের বায়ে অবকাশ কেন্দ্রের মূল ভবন পেরিয়ে গেলেই  সামনে হাতের ডান পাশে চোখে পড়বে “চুকু লুপি” চিল্ড্রেনস পার্ক।

এছাড়া শেরপুর জেলা শহর থেকে ভাড়ায় চালিত সিএনজি অটোরিক্সা অথবা মাইক্রোবাস ভাড়া করেও অবকাশে যাওয়া যাবে। দিন চুক্তি ভাড়া নিবে ২ হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত। আর যারা ঢাকা থেকে নিজস্ব গাড়ীতে আসতে চান তারা ময়মনসিংহ হয়ে সরাসরি শেরপুর জেলা সদর দিয়ে ঝিনাইগাতী উপজেলার অবকাশে যাওয়া যাবে। বেড়ানোর দল যদি ৪ থেকে ৫ সদস্যের হয় তবে শেরপুর শহরে আসার পর শহরের খোয়ারপাড় মোড় থেকে ৩ শ থেকে ৪ শ টাকায় সিএনজি চালিত অটোরিক্সা রিজার্ভ করে সরাসরি অবকাশ কেন্দ্রে যেতে পারেন ।



কোথায় থাকবেন ঃ কেউ যদি বেড়াতে এসে রাত যাপন করতে চান তবে তাকে শেরপুর জেলা সদরেই থাকতে হবে। কারন ঝিনাইগাতী বা অবকাশ কেন্দ্রে রাত যাপন করার মতো কোন আবাসিক হোটেল নেই। শেরপুর জেলা শহরে হাতে গোনা দু-তিনটি ভাল মানের আবাসিক হোটেল ছাড়াও ভিআইপিদের জন্য জেলা সার্কিট হাউজ, জেলা পরিষদ ও এলজিইডি’র রেস্ট হাউজ রয়েছে। সেগুলোতে রাত  যাপন বা রেস্ট নিতে গেলে সংশিŦষ্ট অফিসে অগ্রিম বুকিং দিতে হবে। জেলা পরিষদের রেস্ট হাউজের প্রতি কক্ষ এক রাতের জন্য ভাড়া ৫০ টাকা, এলজিইডি’র প্রতি কক্ষ ৫০ থেকে ১০০ টাকা এবং সার্কিট হাউজের প্রতি কক্ষ ৪০০ টাকা ভাড়া নেওয়া হয়। তবে ওই রেস্ট হাউজে সরকারী কর্মকর্তারা নাম মাত্র ২০ থেকে ৫০ টাকা দিয়ে রাত যাপন করতে পারবেন। এছাড়া শহরের আবাসিক হোটেল গুলোর মধ্যে  হোটল সম্পদ ও কাকলি গেস্ট হাউজ অন্যতম। এসব হোটেলের রুম ভাড়া ১৫০ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত। তবে এসি রুমের ভাড়া ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত।  
কোথায় খাবেন ঃ সীমান্ত এলাকায় ভাল মানের কোন খাবার হোটেল নেই। তবে  শেরপুর জেলা শহরে ভাল মানের যে কয়টি খাবার হোটেল রয়েছে এদের মধ্যে হোটেল শাহজাহান, খানা-খাজানা ও হোটেল আহার উল্লেখযোগ্য। জেলার বাইরে থেকে এ সীমান্ত এলাকার গারো পাহাড়ে বেড়াতে এসে রান্না-বান্নার ব্যাবস্থা না করতে পারলে শহরের ওইসব খাবার হোটেল থেকে খাবারের জন্য অগ্রিম বুকিং দিলে প্যাকেট সরবরাহ করা হয়।

শাহরিয়ার মিল্টন
সম্পাদক ,শেরপুর টাইমস ডটকম
সাংবাদিক, দি ঢাকা ট্রিবিউন
ই-মেইল ঃ shahriar.milton@gmail.com
 


সর্বশেষ


সর্বাধিক পঠিত

Music | Ringtone | Book | Slider | Newspaper | Dictionary | Typing | Free Font | Converter | BTCL | Live Tv | Flash Clock Copyright@2010-2014 turiseguide24.com. all right reserved.
Developed by i2soft Technology